• রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:২৫ পূর্বাহ্ন



করোনায় দেশ ২৩৯ জনের মৃত্যু

Reporter Name / ৭২ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই, ২০২১



নির্ভীক সংবাদ ডেস্ক : মহামারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরো ২৩৯ জন। আর এ সময়ে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে আরো ১৫ হাজার ২৭১ জনের শরীরে।

এ নিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২০ হাজার ২৫৫ জনে। আর এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১২ লাখ ২৬ হাজার ২৫৩ জন।

করোনাভাইরাস নিয়ে বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫২ হাজার ২৮২টি। শনাক্তের হার ২৯.২১ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, আজ সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ৬৪৩টি পরীক্ষাগারে ৫২ হাজার ২৮২ টি নমুনা পরীক্ষা হয়। এ পর্যন্ত দেশে মোট করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ১২ লাখ ২৬ হাজার ২৫৩ জন আর মৃত্যু হয়েছে ২০ হাজার ২৫৫ জনের। সর্বশেষ ১৪ হাজার ৩৩৬ জনের সুস্থতায় এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হওয়া কভিড-১৯ রোগীর সংখ্যা ১০ লাখ ৫০ হাজার ২২০ জন। সর্বশেষ নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বিবেচনায় শনাক্তের হার ২৯ দশমিক ২১ শতাংশ। মোট শনাক্তের হার ১৬ দশমিক শূন্য ০০ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৫ দশমিক ৬৪ ও মৃত্যুহার ১ দশমিক ৬৫ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ঢাকা বিভাগেরই ৭৬ জন। এছাড়া চট্টগ্রামে ৫৭,খুলনায় ৪৫,  রাজশাহীতে ১৩, বরিশালে ১৪, সিলেটে ১৪, রংপুরে ১১ এবং ময়মনসিংহে ৯ জন মারা গেছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ১২৩ জন পুরুষ এবং ১১৬ জন নারী। মৃতদের ১৮১ জন সরকারী হাসপাতালে, ৪৩ জন বেসরকারী হাসপাতালে এবং ১৫ জন বাসায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন । এ পর্যন্ত ভাইরাসটিতে মোট মারা যাওয়াদের মধ্যে পুরুষ ১৩ হাজার ৭৫০ জন এবং নারী ৬ হাজার ৫০৫ জন।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে , গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে ১, ৮১ থেকে ৯০ বছরের ১৪, ৭১ থেকে ৮০ বছরের ৪৩, ৬১ থেকে ৭০ বছরের ৬৫, ৫১ থেকে ৬০ বছরের ৫৭, ৪১ থেকে ৫০ বছরের ২৬, ৩১ থেকে ৪০ বছরের ১৫, ২১ থেকে ৩০ বছরের ১৪, ১১ থেকে ২০ বছরের ৩ এবং শূন্য থেকে ১০ বছরের এক শিশু মারা গেছেন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণ দেখা দেয়। কয়েক মাসের মধ্যে এ ভাইরাস বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। বাংলাদেশে প্রথম করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয় গত বছরের ৮ মার্চ। এরপর বিভিন্ন সময়ে সংক্রমণ কমবেশি হলেও প্রায় দুই মাস ধরে দেশে করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক অবস্থায় পৌঁছেছে। করোনার ডেল্টা ধরনের দাপটে দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যু কয়েক গুণ বেড়েছে।

সংক্রমণের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় বর্তমানে বিশ্বের যেসব দেশে একদিনে সবচেয়ে বেশি রোগী মারা যাচ্ছে, সে তালিকায় ১১তম অবস্থানে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। রোগী শনাক্তের দিক দিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ১২তম। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে করোনা রোগী শনাক্ত ও এতে মৃত্যুর সংখ্যা বিবেচনায় নিয়ে করোনায় সংক্রমণের ঊর্ধ্বমুখী দেশ ২৩৯ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৫ সহস্রাধিক

নির্ভীক সংবাদ ডেস্ক : মহামারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরো ২৩৯ জন। আর এ সময়ে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে আরো ১৫ হাজার ২৭১ জনের শরীরে।

এ নিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২০ হাজার ২৫৫ জনে। আর এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১২ লাখ ২৬ হাজার ২৫৩ জন।

করোনাভাইরাস নিয়ে বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫২ হাজার ২৮২টি। শনাক্তের হার ২৯.২১ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, আজ সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ৬৪৩টি পরীক্ষাগারে ৫২ হাজার ২৮২ টি নমুনা পরীক্ষা হয়। এ পর্যন্ত দেশে মোট করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ১২ লাখ ২৬ হাজার ২৫৩ জন আর মৃত্যু হয়েছে ২০ হাজার ২৫৫ জনের। সর্বশেষ ১৪ হাজার ৩৩৬ জনের সুস্থতায় এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হওয়া কভিড-১৯ রোগীর সংখ্যা ১০ লাখ ৫০ হাজার ২২০ জন। সর্বশেষ নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বিবেচনায় শনাক্তের হার ২৯ দশমিক ২১ শতাংশ। মোট শনাক্তের হার ১৬ দশমিক শূন্য ০০ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৫ দশমিক ৬৪ ও মৃত্যুহার ১ দশমিক ৬৫ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ঢাকা বিভাগেরই ৭৬ জন। এছাড়া চট্টগ্রামে ৫৭,খুলনায় ৪৫,  রাজশাহীতে ১৩, বরিশালে ১৪, সিলেটে ১৪, রংপুরে ১১ এবং ময়মনসিংহে ৯ জন মারা গেছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ১২৩ জন পুরুষ এবং ১১৬ জন নারী। মৃতদের ১৮১ জন সরকারী হাসপাতালে, ৪৩ জন বেসরকারী হাসপাতালে এবং ১৫ জন বাসায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন । এ পর্যন্ত ভাইরাসটিতে মোট মারা যাওয়াদের মধ্যে পুরুষ ১৩ হাজার ৭৫০ জন এবং নারী ৬ হাজার ৫০৫ জন।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে , গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে ১, ৮১ থেকে ৯০ বছরের ১৪, ৭১ থেকে ৮০ বছরের ৪৩, ৬১ থেকে ৭০ বছরের ৬৫, ৫১ থেকে ৬০ বছরের ৫৭, ৪১ থেকে ৫০ বছরের ২৬, ৩১ থেকে ৪০ বছরের ১৫, ২১ থেকে ৩০ বছরের ১৪, ১১ থেকে ২০ বছরের ৩ এবং শূন্য থেকে ১০ বছরের এক শিশু মারা গেছেন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণ দেখা দেয়। কয়েক মাসের মধ্যে এ ভাইরাস বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। বাংলাদেশে প্রথম করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয় গত বছরের ৮ মার্চ। এরপর বিভিন্ন সময়ে সংক্রমণ কমবেশি হলেও প্রায় দুই মাস ধরে দেশে করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক অবস্থায় পৌঁছেছে। করোনার ডেল্টা ধরনের দাপটে দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যু কয়েক গুণ বেড়েছে।

সংক্রমণের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় বর্তমানে বিশ্বের যেসব দেশে একদিনে সবচেয়ে বেশি রোগী মারা যাচ্ছে, সে তালিকায় ১১তম অবস্থানে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। রোগী শনাক্তের দিক দিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ১২তম। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে করোনা রোগী শনাক্ত ও এতে মৃত্যুর সংখ্যা বিবেচনায় নিয়ে এ তালিকা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

নির্ভীক সংবাদ ডটকম।




আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category