• বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ০৬:৩২ পূর্বাহ্ন



দেশীয় অস্ত্রসহ আটক ২ যুবককে ছেড়ে দিলেন দুর্গাপুর থানা পুলিশ

নির্ভীক সংবাদ / ৮১৯ Time View
Update : রবিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২১



নিজস্ব প্রতিবেদকঃ রাজশাহীর দুর্গাপুরে ধারালো দেশীয় অস্ত্র রামদাসহ ২ যুবক কে আটকের পর পুলিশ তাদের ছেড়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। দুর্গাপুর থানা পুলিশ অস্ত্রসহ ২ যুবককে ছেড়ে দেওয়ার ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যকর সৃষ্টি হয়েছে।

জানাগেছে, গত ১৩ই এপ্রিল গভীর রাতে দুর্গাপুর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) জিলানুর ও সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) পলাশের নেতৃত্বে সংগীয় ফোর্সসহ উপজেলার তাহেরপুর সড়কের কাশিপুর নামকস্থানে টহলরত অবস্থায় তল্লাশি চালিয়ে দেশীয় ধারালো অস্ত্র রামদাসহ তাদেরকে আটক করেন। সেই সাথে আটক করা হয় একটি বাজাজ পালসার মডেলের মোটরসাইকেল। পরে গত ১৪ই এপ্রিল (পহেলা বৈশাখ) থানা হাজত থেকে রহস্যজনক কারনে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

আটককৃতরা হলেন, উপজেলার আলিপুর এলাকার খলিলুর রহমানের ছেলে কুখ্যাত সুদ ব্যবসায়ী শফিকুল ইসলাম (৩৫) ও তার সহযোগী মিঠুন(৩০)কে। পুলিশের হাতে আটককৃত শফিকুল এলাকার ভেকুমেশিন দালাল নামেও বেশ পরিচিত। তারা এক প্রভাবশালী চেয়ারম্যানের ছত্রছায়ায় বিভিন্ন অপকর্ম করে বেড়ান।

অভিযোগ উঠেছে, শফিকুল আইন-আদালতকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে প্রভাব বিস্তারের মাধ্যমে সুদ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন দেদারসে। এছাড়াও বিভিন্নভাবে হুমকি-ধামকী ও মামলার ভয় দেখিয়ে দাবিয়ে রাখেন ভুক্তভোগীদের । অপর আটক যুবক মিঠুনের ভাষ্যমতে, তাদের কাছে আরেকটি ধারালো ছুরি ছিলো। ছুরিটি পুলিশ ভ্যানে উঠানোর পরে সিটের নিচে ফেলে দেন।

তবে কুখ্যাত সুদ ব্যবসায়ী শফিকুল ও তার সহযোগী মিঠুনকে ধারালো দেশীয় অস্ত্রসহ আটকের পর ছেড়ে দেওয়ায় পুলিশের ভুমিকা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে জনমনে।

আটকের বিষয়টি স্বীকার করেছেন দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাসমত আলী।
পরে ইউপি চেয়ারম্যান ও স্থানীয় এক ইউপি সদস্যর জিম্মাদারিতে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

জানতে চাইলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পুঠিয়া সার্কেল) জাকারিয়া ইমরান মুঠোফোনে জানান, দুর্গাপুর থানার ওসি আটকের বিষয়ে আমাকে অবগত করেন। তবে ওসি জানান তারা শ্রমিকের কাজ করেন। দেশীয় ধারালো রামদা ও পালসার মটর সাইকেল সহ আটকের বিষয়ে জানতে চাইলে, বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানান।

এব্যপারে, রাজশাহীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন),জনাব মাহমুদুল হাসান বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। আমি খোঁজ নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছি।




আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category