পোস্টার আর ব্যানারে ছেয়ে গেছে দুর্গাপুর পৌর এলাকার জনপদ


নির্ভীক সংবাদ24   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক,দুর্গাপুর: পৌর নির্বাচনকে ঘিরে প্রাচার প্রচারণায় এখন মুখর রাজশাহীর দুর্গাপুর পৌরসভা। আগামী ২৮ শে ( ফেব্রুয়ারি) এই পৌরসভায় প্রথমবারের মতো ইভিএমে ভোট হতে যাচ্ছে।

আর এ নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রার্থী ও ভোটারদের মধ্যে দেখা দিয়েছে উৎসবমুখর পরিবেশ। রাস্তা-ঘাট, হাটবাজার ও অলিগলি নির্বাচনের প্রার্থীদের পোস্টার আর ব্যানারে ছেয়ে গেছে পুরো পৌর এলাকার জনপদ।

প্রার্থীদের চলছে উঠান বৈঠক, আলোচনা সভা,মিছিল, গণসংযোগ ও মাইকিং। এ অবস্থায় সাধারণ ভোটাররা চান সব ধরনের সংঘাত এড়িয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট দিতে। এ পৌরসভায় ভোটের মাঠে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন দেশের বৃহত্তম দুই রাজনৈতিক দলের মনোনীত প্রার্থীসহ মোট ৪ জন।

তারা হলেন— বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান মেয়র মোঃ তোফাজ্জল হোসেন ( প্রতীক নৌকা), বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) মনোনীত প্রার্থী উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মো. জার্জিস হোসেন সোহেল (ধানের শীষ), বাংলাদেশ আ.লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী  মোঃ হাসানুজ্জামান সান্টু (মোবাইল ফোন) প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ও বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি( জাপা) মনোনীত মোঃ হুমায়ন কবির প্রার্থীর ( প্রতীক লঙ্গল) ।

নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, দুর্গাপুর পৌরসভার ০৯টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ২১ হাজার ১২৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ১০ হাজার ৪৪৫ জন এবং মহিলা ভোটার ১০ হাজার ৬৮১ জন। এই পৌরসভায় মোট ১১টি ভোটকেন্দ্রের ৫৭টি বুথে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

সরেজমিন পৌরসভার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, প্রতীক বরাদ্দের পর পরই আরও পুরোদমে শুরু করেছে প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচারণা। সকল দলের অংশগ্রহণ থাকায় জমজমাট হয়ে উঠছে এবারের নির্বাচনের মাঠ। আর এ নির্বাচনকে ঘিরে রাজনৈতিক দলগুলোর তৃণমূল নেতাকর্মী ও ভোটারদের মধ্যেও বিরাজ করছে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা। তবে নির্বাচনি প্রচারণায় মেয়র প্রার্থীদের পাশাপাশি পিছিয়ে নেই কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থীরাও, তারাও ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট ও দোয়া প্রার্থনা করছেন।

তাছাড়া, পৌরসভার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সড়কে, মোড়ে, হাট-বাজারে প্রার্থীদের ছবি সম্বলিত পোস্টার শোভা পাচ্ছে। টানানো হয়েছে ব্যানার। রাত পোহালেই বিভিন্ন গান বাজনার মাধ্যমে প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীর সমর্থকরা।

কাঁক ডাকা ভোর থেকে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত  প্রার্থীরা ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। ভোটারদের দিয়ে যাচ্ছেন নানা রকমের প্রতিশ্রুতি। চায়ের স্টল থেকে শুরু করে পাড়া-মহল্লায় চলছে প্রার্থীদের নিয়ে আলোচনা সমালোচনার ঝড়। তবে প্রার্থীরা যে যা-ই বলুক না কেন, আসন্ন পৌর নির্বাচন কেন্দ্র করে সাধারণ ভোটাররা ভাবছেন উন্নয়নের কথা। পৌর এলাকার সার্বিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারবেন এবং নাগরিক সুবিধা যাদের কাছ থেকে পাবেন, এবারের নির্বাচনে এমন প্রার্থীকেই ভোট দেয়ার কথা ভাবছেন ভোটাররা।

আওয়ামী লীগ থেকে মনোনীত বর্তমান মেয়র মোঃ তোফাজ্জল হোসেন বলেন, ‘দুর্গাপুর পৌরসভাকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা, হাট-বাজারের সার্বিক উন্নয়ন, পৌর এলাকায় সড়কবাতি,পানি সরবরাহ,রাস্তাঘাটের উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ,ড্রেন নির্মাণসহ নির্বাচনকালীন প্রতিশ্রুতিগুলি পূরণ করছি। যতটুকুই কাজ করেছি সবটুকুই জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়নের ছোঁয়া। আবারও নির্বাচিত হলে উন্নয়নের পাশাপাশি পৌরসভাকে একটি মডেল পৌরসভায় রূপ দিতে পারবো।’

বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী মোঃ জার্জিস হোসেন সোহেল বলেন, ‘অবাধ এবং সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ধানের শীষের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না।’
স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মোঃ হাসানুজ্জামান সান্টু বলেন, ‘ভোটারদের কাছে যাচ্ছি, বেশ সাড়া পাচ্ছি। নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী।’

জাতীয় পার্টির প্রার্থী হুমায়ন কবির বলেন, দুর্গাপুরে সাধারণ মানুষ জাতীয় পার্টিকে ভালবাসে, যদি কেন্দ্র দখল না করা হয়, প্রশাসন যদি নিরপেক্ষ হয়ে সুষ্ঠু ভোট গ্রহণ কার্যক্রম সম্পন্ন করে, তবে বিজয় আমাদের শতভাগ নিশ্চিত।’

পৌরসভার সাধারণ ভোটাররা বলছেন, পৌরসভার উন্নয়নে যিনি সর্বাত্মক চেষ্টা করবে এবং গরিব-দু:খী মানুষের পাশে থাকবে এবং সর্বদাই কাজেকর্মে পাশে পাবো তাকে আমরা ভোট দেয়ার কথা ভাবছি। এদিকে, ভোটারদের চাহিদা অনুযায়ী পৌরসভার সকল নাগরিকদের সাধারণ সুবিধা দেয়ার প্রতিশ্রুতির কথা দিয়ে ভোট চাচ্ছেন মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা।
নির্ভীক সংবাদ ডটকম

Total view = 182