প্রচার-প্রচারণায় জমে উঠেছে পুঠিয়া পৌর নির্বাচন


নির্ভীক সংবাদ24   প্রকাশিত হয়েছেঃ   ২৫ ডিসেম্বর, ২০২০

পুঠিয়া (রাজশাহী) প্রতিনিধিঃ হাজার বছরের ইতিহাসের গতিধারা নির্ণয়কারী অসংখ্য নিদর্শন সমৃদ্ধ পুঠিয়া উপজেলায় পৌরসভার নির্বাচনকে ঘিরে এলাকাজুড়ে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। বেশ জোরেশোরে চলছে প্রার্থীদের শেষ মুহূর্তের প্রচার-প্রচারণা। মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে পৌর এলাকার ৯টি ওয়ার্ডের পাড়া-মহল্লা। শীতকে উপেক্ষা করে প্রার্থী ও কর্মী-সমর্থকরা ভোটারদের ঘরে ঘরে ভোট প্রার্থনা করার পাশাপাশি উন্নয়নের নানা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন। এদিকে পৌর এলাকার প্রধান সড়কসহ পাড়া-মহল্লার অলিগলি পোষ্টারে ছেয়ে গেছে। অন্যদিকে দুপুর ২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের পক্ষে চলছে মাইকিং। এছাড়াও সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত পথসভা, মতবিনিময় সভা, উঠান বৈঠকে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীরা।

আগামী ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য এ নির্বাচনে মেয়র পদে ৩ জন, ৯টি ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৮ জন এবং সংরক্ষিত ৩টি ওয়ার্ডে নারী কাউন্সিলর পদে ৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মেয়র পদের প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের রবিউল ইসলাম রবি (নৌকা), বিএনপির আল মামুন (ধানের শীষ) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী গোলাম আজম নয়ন (নারিকেল গাছ) মার্কা। এদিকে মেয়র পদের প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী রবি’র প্রচার-প্রচারণায় অনেক এগিয়ে থাকলেও বর্তমানে নিজ দলের ভেতরে চলমান অভ্যান্তরীণ কোন্দলে ভোটের মাঠে অনেকটায় পিছিয়ে পড়েছেন।

আর এই সুযোগে দলের যুবলীগ নেতা ত্যাগী হিসেবে পরিচিত স্বতন্ত প্রার্থী গোলাম আজম নয়ন স্থানীয় আ’লীগসহ সকল অঙ্গ সংগঠনের বেশিরভাগ নেতাকর্মীর সর্মথন ও সহযোগিতায় ভোটের মাঠে অনেকটায় এগিয়ে রয়েছেন। তার পক্ষে প্রতিদিনই মোটরসাইকেল শোভাযাত্রাসহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের পাড়া-মহল্লায় নারিকেল গাছ মার্কার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে ভোট চেয়ে মিছিল, মিটিং, মতবিনিময় সভাসহ নিরবে সমর্থন আদায়ে কাজ করছেন দলের নেতাকর্মীরা। জানা গেছে, ইতোমধ্যেই নির্বাচন পরিচালনা কমিটিসহ ৯টি সেন্টার কমিটি গঠন করা হয়েছে। সেন্টার কমিটির সদস্যরা সম্মিলিতভাবে নারিকেল গাছ মার্কার পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছেন। অন্যদিকে ধানের শীষের প্রার্থী আল মামুনের পক্ষে বিএনপির কিছু নেতা-কর্মীদের প্রচার-প্রচারণায় অংশ নিতে দেখা গেলেও দলের অপর একটি বড় অংশের নেতাকর্মীদের তার পক্ষে তেমন একটা প্রচারণায় দেখা মিলছে না।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে নাম গোপন রাখার শর্তে উপজেলা ও পৌর বিএনপির একাধিক নেতা জানান, ধানের শীষের পক্ষে নির্বিঘ্নে প্রচার-প্রচারণা চালানোর পরিবেশ নেই। তবে নেতারা বলেন, ভোট সুষ্ঠু হলে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। এ বিষয়ে সহকারি রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাচন অফিসার জয়নুল আবেদীনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বিএনপির পক্ষ থেকে তার কার্যালয়ে কোনও লিখিত অভিযোগ করা হয়নি। তবে নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ করতে নির্বাচন কমিশন বদ্ধপরিকর।

অন্যদিকে এবারের নির্বাচনে পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৮ জন ও ৩টি সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৮ জন। মোট ৩১ জন পুরুষ ও ৮জন নারী প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। কাউন্সিলর পদপ্রার্থীরা উৎসবমুখর পরিবেশে রাত-দিন ভিন্ন ভিন্ন কৌশলে প্রচার-প্রচারণা ও গণসংযোগ করে যাচ্ছেন। উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, ১৩ দশমিক ৫১ বর্গকিলোমিটার আয়তনের এই পৌরসভার মোট ভোটার ১৬ হাজার ৬৩৩ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ৮ হাজার ১৬০ জন এবং নারী ভোটার ৮ হাজার ৪৭৩ জন। পৌরসভার মোট ৯ টি ওয়ার্ডে ৪৮টি বুথে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এর মাধ্যমে ভোট গ্রহণ করা হবে। ভোটের দিন অবাধ, সুষ্ট ও নিরপেক্ষ ভোটদানের পরিবেশ বজায় রাখতে কয়েক ধাপে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর নিরাপত্তা বেষ্টনী থাকবে জোরদার।

Total view = 201