• রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:০৬ পূর্বাহ্ন



রাজশাহীতে বিনোদনে নতুন মাত্রা যোগ হবে শেখ রাসেল শিশুপার্ক

Reporter Name / ৫৩ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই, ২০২১



নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী মহানগরীর ছোট বনগ্রামে হচ্ছে শেখ রাসেল শিশুপার্ক। সিটি করপোরেশন পার্কটি দৃষ্টিনন্দন ও আকর্ষণীয়ভাবে গড়ে তুলতে ৪ কোটি ৪২ লাখ ৪৭ হাজার টাকা ব্যয়ে উন্নয়ন কাজ করছে। পার্কটির উন্নয়ন কাজ যাতে দ্রুত শেষ করা যায়, তার নির্দেশনা দিতে ইতিমধ্যেই উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করেছেন সিটি করপোরেশনের মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন। ২ দশমিক ১৪ এক জমির ওপর পার্কটি নির্মাণ করা হচ্ছে।

রাসিক সূত্র জানায়, মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটনের উদ্যোগে শেখ রাসেল শিশুপার্কটি দৃষ্টিনন্দন ও আকর্ষণীয় করে সাজাতে নকশা তৈরি করা হয়েছে। সিটি করপোরেশনের নকশা অনুযায়ী ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সেই কাজ বাস্তবায়ন করছে। শেখ রাসেল শিশুপার্কে থাকবে উন্নতমানের নিরাপত্তা ব্যবস্থাসহ আধুনিক প্রবেশ গেট, ওয়াটার বডি, দৃষ্টিনন্দন সেতু। মুক্তমঞ্চ, সবুজায়ন, কৃত্রিম টিলা, শিশুদের জন্য বিভিন্ন রাইড, চলাচলের জন্য রাস্তা, পাবলিক টয়লেটসহ আধুনিক সুযোগ-সুবিধা। উন্নয়ন কাজ শেষ হলে শেখ রাসেল শিশুপার্কটি হবে শিশুসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষের অন্যতম বিনোদন কেন্দ্র।

মহানগরের ছোটবনগ্রাম এলাকার আকবর হোসেন বলেন, শহর এলাকায় শিশুদের বিনোদনের জন্য বিশেষ কোনো ব্যবস্থা নেই। এ শিশুপার্কটি নির্মাণ হলে শিশুদের বিনোদনের ব্যবস্থা হবে। যত দ্রুত পার্কটি নির্মাণ হবে তত দ্রুতই আমাদের শিশুদের জন্য বিনোদনের ব্যবস্থা হবে। কাজ শেষ হলে চমৎকার পরিবেশ উপভোগ করার পাশাপাশি শিশুদের অবসর সময়টা অনেক ভালো কাটবে।

জানতে চাইলে রাসিকের স্থপতি জহুরুল আনোয়ার অনন্ত বাংলানিউজকে বলেন, পার্ক নির্মাণের ব্যাপারে সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন সার্বিক দিকনির্দেশনা ও পরামর্শ দিচ্ছেন। শিশুপার্কটিকে দৃষ্টিনন্দন ও আকর্ষণীয়ভাবে সাজাতে ইতোমধ্যে ডিজাইন তৈরি করা হয়েছে। সিটি করপোরেশনের ডিজাইন অনুযায়ী ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ সম্পন্ন করবে। আশা করছি দ্রুত সময়ের মধ্যে আমরা নগরবাসীকে পার্কটি উপহার দিতে পারবো।

রাজশাহী সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, মহানগরের প্রতিটি এলাকায় শিশু ও বয়স্কদের কথা চিন্তা করে পার্ক নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। নগরায়ণের ফলে শিশুদের খেলার জায়গা কমে যাচ্ছে, মানুষের আড্ডার জায়গা কমে যাচ্ছে।

তাই সিটি করপোরেশন এমন উদ্যোগ নিয়েছে। বর্তমানে পার্কটি শিশুদের বিনোদনের উপযোগী করতে আধুনিকায়ন হচ্ছে। কাজ শেষ হলে শেখ রাসেল শিশুপার্কটি হবে শিশুসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষের অন্যতম বিনোদন কেন্দ্র।

নির্ভীক সংবাদ ডটকম।




আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category