• রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ০২:৫৯ পূর্বাহ্ন



‘শিথিল হচ্ছে’ বিধিনিষেধ, ঈদে চলতে পারে সীমিত আকারে গণপরিবহন

Reporter Name / ১০৯ Time View
Update : সোমবার, ১২ জুলাই, ২০২১



নির্ভীক সংবাদ ডেস্ক: মানুষের জীবন-জীবিকা প্রাধান্য দিয়ে আসন্ন ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে চলমান বিধি-নিষেধে কিছুটা শিথিলতা আনতে যাচ্ছে সরকার। এরমধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পশুরহাট বসানো, শপিংমল খুলে দেওয়া এবং সিটি করপোরেশন ও জেলার ভেতর বাস চলার অনুমতি দেওয়া হতে পারে।

তবে দূরপাল্লার বাস ও যাত্রীবাহী লঞ্চ-ট্রেন বন্ধ রাখা হবে। আর ঈদের ছুটিতে কর্মস্থল ত্যাগ না করতে নির্দেশনা দেওয়া হবে।

রোববার সচিবালয়ে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান তিনি।

নৌপ্রতিমন্ত্রী বলেন, জাতীয় টেকনিক্যাল পরামর্শক কমিটির পরামর্শে চলমান বিধিনিষেধ আবারো বাড়তে পারে। তবে বিধিনিষেধ পুরোপুরি উঠে গেলে পরিবহনও পুরোপুরিই চলবে।

দেশে সাম্প্রতিক সময়ে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ব্যাপক হারে বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে প্রথম দফায় ১ জুলাই থেকে এক সপ্তাহের (৭ জুলাই) জন্য কঠোর লকডাউন ঘোষণা করা হয়। পরে সংক্রমণ পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় তা বাড়িয়ে আগামী ১৪ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত করা হয়েছে। কিন্তু তার পরও গত কয়েক দিনে ভাইরাসটির সংক্রমণ ও মৃত্যু আরো বেড়ে গেছে।

প্রতিমন্ত্রীর মতে, আগামী ১৪ জুলাই পর্যন্ত বিধিনিষেধের সময়সীমা রয়েছে। আমাদের টেকনিক্যাল কমিটিতে (জাতীয় টেকনিক্যাল পরামর্শক কমিটি) যারা রয়েছেন, তাদের পরামর্শে সরকার যদি মনে করে বিধিনিষেধ এগিয়ে নেয়া প্রয়োজন, সেটিও হতে পারে। সবকিছুই এখন পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করছে। এছাড়া বেঁচে থাকলে জীবনে ঈদ অনেকবার আসবে। আমাদের এ অবস্থা থেকে বের হতেই বিধিনিষেধ দেওয়া হয়েছে, সেটি সবার মানা উচিত।

সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘জানি ঘরে থাকা কঠিন। যুদ্ধক্ষেত্রেও মানুষ ঘরে থাকতে চান না। কিন্তু এটাও একটা যুদ্ধ। এটা না মানায় পরিস্থিতি ভয়াবহ হয়ে গেছে। গ্রামে অনেকে করোনা টেস্ট করছে না, অনেকে মারা যাচ্ছেন। সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধ মেনে চললে, আমরা সুফল পাব।’

নির্ভীক সংবাদ ডটকম।




আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category